০৯:৫৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘ফখরুলের কারণে’ পদ ছাড়লেন বিএনপি নেতা মোবাশ্বের আলম ভুঁইয়া

বিএনপির দলীয় সব পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতা মোবাশ্বের আলম ভুঁইয়া। কুমিল্লা–১০ আসন থেকে ২০০৮ সালে সংসদ নির্বাচন করে পরাজিত হওয়া এই নেতা বলেছেন, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে তিনি দলীয় সব পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তবে তিনি দলে থাকবেন।

মোবাশ্বের আলম বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির সহসভাপতি ও নাঙ্গলকোট উপজেলার আহ্বায়ক। তিনি দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান বরাবর পদত্যাগপত্র দিয়েছেন। এ সংক্রান্ত চিঠি তিনি আজ বাহক মাধ্যমে বিএনপির নয়া পল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে পৌঁছে দিয়েছেন।

মোবাশ্বের আলম পদত্যাগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেছেন, জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর তিনি মির্জা ফখরুল ইসলামের সঙ্গে ফুল ও মিষ্টি নিয়ে সাক্ষাৎ করতে যান। কিন্তু সেখানে তিনি ভালো ব্যবহার পাননি। এ কারণেই দলীয় পদ থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন।

বিএনপির এই নেতা বলেন, আপাতত দলে থাকছেন, তবে পদে থাকছেন না। তিনি বলেন, বিএনপি এভাবে চলতে পারে না। দেশে বসে যারা দল চালাচ্ছেন সেখানে পরিবর্তন না হলে ভবিষ্যতে বিএনপিতে থাকবেন না বলেও জানান তিনি। পদত্যাগপত্রে তিনি বিস্তারিত জানিয়েছেন বলে জানান।

লেখকের পরিচিতি

জনপ্রিয় সংবাদ

রোড মার্চ সফল করার লক্ষ্যে নাঙ্গলকোটে বিএনপির গনমিছিল ও সমাবেশ

‘ফখরুলের কারণে’ পদ ছাড়লেন বিএনপি নেতা মোবাশ্বের আলম ভুঁইয়া

আপডেট সময় : ০৬:০৯:৪২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ এপ্রিল ২০১৯

বিএনপির দলীয় সব পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতা মোবাশ্বের আলম ভুঁইয়া। কুমিল্লা–১০ আসন থেকে ২০০৮ সালে সংসদ নির্বাচন করে পরাজিত হওয়া এই নেতা বলেছেন, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে তিনি দলীয় সব পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তবে তিনি দলে থাকবেন।

মোবাশ্বের আলম বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির সহসভাপতি ও নাঙ্গলকোট উপজেলার আহ্বায়ক। তিনি দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান বরাবর পদত্যাগপত্র দিয়েছেন। এ সংক্রান্ত চিঠি তিনি আজ বাহক মাধ্যমে বিএনপির নয়া পল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে পৌঁছে দিয়েছেন।

মোবাশ্বের আলম পদত্যাগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেছেন, জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর তিনি মির্জা ফখরুল ইসলামের সঙ্গে ফুল ও মিষ্টি নিয়ে সাক্ষাৎ করতে যান। কিন্তু সেখানে তিনি ভালো ব্যবহার পাননি। এ কারণেই দলীয় পদ থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন।

বিএনপির এই নেতা বলেন, আপাতত দলে থাকছেন, তবে পদে থাকছেন না। তিনি বলেন, বিএনপি এভাবে চলতে পারে না। দেশে বসে যারা দল চালাচ্ছেন সেখানে পরিবর্তন না হলে ভবিষ্যতে বিএনপিতে থাকবেন না বলেও জানান তিনি। পদত্যাগপত্রে তিনি বিস্তারিত জানিয়েছেন বলে জানান।